অবরোধে কুষ্টিয়ায় চাল উৎপাদন ও সরবরাহে স্থবিরতা

Update: 2015-01-21 08:40:05, Published: 2015-01-21 08:40:05
অবরোধে কুষ্টিয়ায় চাল উৎপাদন ও সরবরাহে স্থবিরতা


বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটের লাগাতার অবরোধে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম চালের মোকাম কুষ্টিয়ার খাজানগরে চাল উৎপাদন ও সরবরাহ ব্যবস্থা স্থবির হয়ে পড়েছে। এতে লাখ লাখ টাকা লোকসান গুণছেন মালিকরা আর বেকার হয়ে পড়ছেন হাজার হাজার চাতাল শ্রমিক। এর প্রভাব পড়ছে দেশের চালের বাজারে।

অবরোধের কারণে রাইস মিল ও চাতাল কলগুলো বন্ধ থাকায় এভাবেই অলস সময় পার করছেন শ্রমিকরা। এই অঞ্চলের সবচেয়ে বড় রাইস মিল রশিদ অ্যাগ্রো প্রোডাক্টস। এখান থেকে সারাদেশে প্রতিদিন গড়ে ১০ ট্রাক চাল সরবরাহ করা হয়ে থাকে। বর্তমানে তা অনেকাংশেই বন্ধ। এতে প্রতিদিন তাদের ক্ষতি হচ্ছে প্রায় দুই লাখ টাকা।

এমনইভাবে প্রতিদিন কোটি কোটি টাকার লোকসান গুনছে কুষ্টিয়া সদরের ৩শ' টি রাইস, ২০টি অটো রাইস মিল ও ৫০টি সেমি অটো রাইস মিল।

মিল মালিকরা বলেন, 'কোনমতে নসিমন-করিমনের মতো ফিটনেস বিহীন পরিবহণ দিয়ে চাল সরবরাহ করা হচ্ছে। কিন্তু দূরে কোথাও চাল সরবরাহ করা সম্ভব হচ্ছে না।'

এদিকে, চাল আমদানি করতে না পারায় বেকার হয়ে পড়েছেন চাতাল শ্রমিকরা।

চাতাল শ্রমিকরা বলেন, 'দুই সপ্তাহ ধরে কোন চাল বিক্রি হচ্ছে না। আবার ধান ক্রয় সম্ভব হচ্ছে না ট্রাকের অভাবে। এভাবে চলতে থাকলে এই অঞ্চলের সকল মিল-কারখানা বন্ধ হয়ে যাবে।'

এ অবস্থায় ব্যাংক ঋণ পরিশোধ নিয়ে দুশ্চিন্তায় মিল মালিকরা।

বাংলাদেশ অটো মেজর এন্ড হাসকিং মিল মালিক সমিতির সভাপতি আব্দুর রশিদ বলেন, 'এইভাবে চলতে থাকলে প্রতিটি মিলই ব্যাংকের কাছে দেনা হয়ে যাবে। তখন ব্যাংকগুলো মিল মালিকদের ওপর বিশাল চাপ সৃষ্টি করবে।'

খাজানগর থেকে প্রতিদিন প্রায় দেড় হাজার মেট্রিক টন চাল দেশের বিভিন্ন জায়গায় সরবরাহ করা হয়। অবরোধের কারণে তা চার ভাগের এক ভাগে নেমে এসেছে। আর মিল মালিকদের হিসেব মতে, প্রতিদিন ক্ষতির পরিমাণ ২ থেকে ৩ কোটি টাকা।

Update: 2015-01-21 08:40:05, Published: 2015-01-21 08:40:05

আপনার মন্তব্য লিখুন

পাঠকের মন্তব্য ( )


More News
  


আরও সংবাদ


জনপ্রিয় ট্যাগ

সংবাদ অনুসন্ধান

সরাসরি সম্প্রচার

সরাসরি যোগাযোগ

৮৯, বীর উত্তম সি. আর. দত্ত রোড, ঢাকা ১২০৫, বাংলাদেশ।
ফ্যাক্স: +৮৮০২ ৯৬৭০০৫৭, ইমেইল: info@somoynews.tv
উপরে en.Somoynews.tv