সৌদি-কাতারের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানালো যুক্তরাষ্ট্র
সময়নিউজ.টিভি: ২০১৩-০৩-০৫
সিরিয়ার বিদ্রোহীদের অস্ত্র সহায়তা দেয়ার সৌদি আরব ও কাতারের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি বলেছেন, প্রেসিডেন্ট আসাদকে উৎখাতে দেয়া মার্কিন সহায়তা ভুল হাতে পড়বে না বলে মনে করেন তিনি। এদিকে, সিরিয়ার রাক্কা প্রদেশসহ দামেস্ক, আলোপ্পো এবং হোমস শহর দখলে নিয়েছে বলে দাবি করছে বিরোধীদলীয় জোট সিরিয়ান ন্যাশনাল কোয়ালিশন। এভাবেই সিরিয়ার রাক্কা প্রদেশে প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের বাবা হাফিজ আল আসাদের মূর্তি টেনে নামায় বিদ্রোহীরা।
সোমবার দখলকৃত রাক্কা প্রদেশে বিদ্রোহীদের উল্লাস এবং হোমস শহরে আসাদ বাহিনী এবং বিদ্রোহেদের মধ্যে ভয়াবহ বন্দুকযুদ্ধের ভিডিওচিত্র প্রকাশ করে কয়েকটি সামাজিক যোগাযোগ সাইট। এদিকে, প্রেসিডেন্ট আসাদ বিদ্রোহীদের সঙ্গে আলোচনা বসতে আগ্রহী নন বরং তিনি আরো বেশি সময় ক্ষমতায় থাকার চেষ্টা করছেন অভিযোগ করলেন বিরোধীদলীয় নেতা মুয়াজ আল খতিব।
"যে বিদ্রোহীরা অস্ত্র জমা দেবে, তাদের সাথে আলোচনায় বসতে প্রস্তুত'' বলে প্রেসিডেন্ট আসাদ 'দ্য সানডে টাইমস'কে যে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন -- তার সমালোচনাও করেন তিনি।
বিরোধীদলীয় নেতা মোয়াজ আল খতিব বলেন, 'তারা আলোচনার ব্যাপারে এখনো কিছু জানায়নি।এর মধ্য দিয়ে তারা আরো সময় নিচ্ছে। যদি তারা চায় তাহলে আমাদের পরবর্তী পদক্ষেপ কি হবে তা নিয়ে আমরা বৈঠক করবো।'
অন্যদিকে, সিরীয়দের নিরাপত্তা এবং সাহায্য করতে সব ধরণের সহায়তার আশ্বাস দিয়েছেন সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী সৌদ আল ফয়সাল।
এদিকে, বিদ্রোহীদের অস্ত্র সহায়তা দেয়ার সৌদি আরব এবং কাতারের ঘোষণা ইতিবাচক বলে উল্লেখ করেছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।
মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি বলেন, 'সিরিয়ার এমন পরিস্থিতিতে ভুল হাতে অস্ত্র গেলে তার কোনো নিশ্চয়তা দেয়া সম্ভব নয়। সিরিয়ার দায়িত্বশীল বিরোধীদল অস্ত্রের নিরাপত্তা দিতে তাদের সক্ষমতার প্রমাণ দিয়েছে।'
এদিকে, সিরীয় বিদ্রোহীরা আন্তর্জাতিক পারমানবিক শক্তি সংস্থা আইএইএ'কে দেইর আল জৌর এলাকা পরিদর্শনের জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছে। কিন্তু সিরীয় সরকারের কাছ থেকে এ বিষয়ে সহযোগিতা চেয়েছে সংস্থাটি।